ঢামেকে হাসপাতালে চিকিৎসকের গাফিলতি : মৃত ঘোষণার পর কবরস্থানে শিশু জীবিত

ঢামেকে হাসপাতালে চিকিৎসকের গাফিলতি : মৃত ঘোষণার পর কবরস্থানে শিশু জীবিত

ব্রেকিংস ডেস্ক :: ঢাকা মেডিকেল কলেজ ঢামেক হাসপাতালে মৃত ঘোষণার পর কবরস্থানে নেয়ার পর জীবিত হয়ে উঠার ঘটনাটি দুঃখজনক বলে মন্তব্য করেছেন হাসপাতালটির পরিচালক। তদন্ত শেষে কারোর গাফিলতি পাওয়া গেলে অবশ্যই তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানিয়েছেন ঢামেক হাসপাতাল পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল একেএম নাসির উদ্দিন। আজ ১৭ অক্টোবর শনিবার দুপুরে হাসপাতালে তার কক্ষে সাংবাদিকদের এসব কথা জানান তিনি।
পরিচালক বলেন, আমি আজ সকালেও চার সদস্য বিশিষ্ট তদন্ত কমিটির সঙ্গে বসেছিলাম। তাদের কাছেও জানার চেষ্টা করেছি কি কারণে এমনটি হয়েছে।তবে শিশুটি জন্মের পর কোনো কান্নাকাটি, নড়চড়া ছিল না। তার হার্ডবিটও পাচ্ছিলো না। আমাদের চিকিৎসকরা অনেক চেষ্টা করছিলো, কিন্তু অনেক সময় পরেও কোনো রেসপন্স পাচ্ছিলো না। তারপরও চিকিৎসকরা অক্সিজেন দিয়ে রেখে দেয় শিশুটিকে। শিশুটিকে মৃত ঘোষণা করে ডেড সার্টিফিকেট দেয়ার পর শিশুটির বাবা কবরস্থানে নিয়ে যায়।
পরিচালক বলেন, শিশুটি এখনও এনআইসিইউতে ভর্তি রয়েছে। আগের চাইতে কিছুটা ইমপ্রুভ হচ্ছে। এক কেজি ওজনের কমেই শিশুটি জন্ম হয়েছিলো। এজন্য তার অনেক কিছুই ডেভোলপ হয়নি। এক প্রশ্নের জবাবে পরিচালক বলেন, ঘটনাটি দুঃখজনক। সমস্যাটা কোথায় ছিলো সেটি বের করার জন্যই তদন্ত কমিটি করা হয়েছে। কমিটি আজকেও আমার সঙ্গে বসেছে। কেনো এমন ঘটনা হলো তা বের করা হবে আর এ ধরনের ঘটনা যাতে ভবিষ্যতে না ঘটে সেই অনুযায়ি ব্যাবস্থা করা হবে। ঘটনাটি মিরাকেল। মেডিকেল সাইন্সে এমন ঘটনা হতেই পারে, অনেক জায়গায়ই হয়েছে। তবে আমরা দেখবো কারো কোনো অবহেলা ছিলো কিনা।
এর আগেও আমাদের এখানে এমন একটি ঘটনা ঘটেছিলো সেই ঘটনায় ওই চিকিৎসককে আমরা আর এখানে ট্রেনিং দেয়নি। এক পর্যায়ে তিনি দেশের বাইরে চলে গেছেন। তবে এটি ইচ্ছা করে কেউ করেনি।